Deprecated: Methods with the same name as their class will not be constructors in a future version of PHP; booked_calendar has a deprecated constructor in /home/hijamacom/public_html/wp-content/plugins/booked/includes/widgets.php on line 5
এ্যানাটমি অফ হিজামা স্ক্র্যাচ - হিজামা প্ল্যানেট : কাপিং ও রুকইয়াহ সেন্টার

এ্যানাটমি অফ হিজামা স্ক্র্যাচ

সাঁতার শিখবেন?
Mon _25 _June _2018AH 25-6-2018AD
Hijama Cupping Accessories Bangladesh
Thu _27 _December _2018AH 27-12-2018AD

এ্যানাটমি অফ হিজামা স্ক্র্যাচ

skin layer to be understood for hijama

প্রায়ই রোগীরা আসেন যারা হিজামা করিয়েছেন বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান থেকে, উপকার তেমন পাননি কিন্তু পেয়েছেন পার্মানেন্ট “স্কার মার্ক”!

 

স্কার মার্ক কি?

 

স্কার মার্ক কি- সেটা জানার আগে জানতে হবে স্কিনে কয়টা লেয়ার আছে এবং কি কি?

 

skin layer to be understood for perfect hijama cuts.

 

    1. এপিডার্মিসঃ স্কিনের ১ম স্তর। প্রতি ২১ দিন অন্তর অন্তর এই লেয়ার নতুন করে পুনর্গঠিত হয়। হিজামার স্ক্রাচ মূলত এই স্তরেই দেয়া হয়।
    2. ডার্মিসঃ স্কিনের ২য় স্তর। নেগেটিভ সাকশানের কারনে এখানে হাইপারেমিয়া হবে, এখানে কাট বা ইনজুরি হবে তবে সেটা প্যাপিলারি লেয়ারের মাইক্রোভেসেলস বা ক্যাপিলারি পর্যন্ত সীমাবদ্ধ হবে। অর্থাৎ আসলে স্ট্রেট লাইন টানলে সেটা এপিডার্মিসের মধ্যেই সীমাবদ্ধ।
    3. সাবকিউটানিয়াস স্তরঃ সর্বশেষ স্তর। কোনো পরিবর্তন নেই।

 

এখানে দেখুনঃ এপিডার্মিসের প্যাপিলা স্ক্যালোপড শেইপের হয়। এই এই প্যাপিলার কনকেইভিটির ভেতরে ছোট ছোট রক্তনালী থাকে।

Go Back to সূচীপত্র

 

স্কার মার্ক হলো স্কিনের ২য় স্তর ডার্মাল লেয়ারে একগুচ্ছ অসংগতিপূর্ণ কোলাজেন টিস্যু গুচ্ছ।

 

যেকোনো আঘাতের পর সময়ের সাথে সাথে টিস্যু পুনরায় রিজেনারেট করতে চেষ্টা করে, তবে ত্বক কখনোই তার মূল অবস্থায় ফিরে যাবে না – বিশেষ করে যদি কাট ডেপথ এপিডার্মিস (Epidermis) অতিক্রম করে স্ক্যালোপড বেইজমেন্ট মেমব্রেনের এর নীচের যে দাগ টানা হয়েছে সেটা পেরিয়ে যায় ( স্কিন এর নীচের স্তর)।

হিজামা করলে কি স্কার মার্ক হওয়া সম্ভব?

হিজামাতে কাটা হয় এটা সবাই কম বেশী জানি। কিন্তু এই কাটাটা কেমন? গভীরতা কতটুকু?
প্রথমত, হিজামাতে কাটা হয় না। Scratch (স্ক্র‍্যাচ) কিংবা আঁচড় দেয়া হয়। এই স্ক্রাচ মার্ক শুধুই স্কিনের প্রথম লেয়ার এপিডার্মিস পর্যন্ত হবে। আগেই বলেছি এপিডার্মিস লেয়ার প্রতি ৩ মাসে নতুন করে হয়ই, এই স্ক্রাচ মার্ক ২৪ ঘন্টা থেকে ৭ দিনের মধ্যেই হিল হবে ইন শা আল্লাহ এবং পরবর্তীতে স্কিনে কোনো দাগ অবশিষ্ট থাকবে না।
তবুও কেনো কখনো কখনো হিজামা করার মাস খানেক পর কিংবা কয়েক বছর পরও দাগ দেখা যায়?
এই দাগ গুলো কিছুটা প্রেগন্যান্সির সময়ের স্ট্রেস মার্ক এর মতো দেখায়। হিজামায় তো স্ক্র‍্যাচ দেয়া হয় তাহলে এই দাগ কেনো রয়ে গেলো? এখানে দুটি ফ্যাক্টর হতে পারেঃ
  1. যিনি হিজামা করেছেন উনি হিজামা সম্পর্কে অনভিজ্ঞ। হাদীসে আছে ” হিজামার কাটাতেই শেফা” – আর এই কাটাই যে পারেন না সে হিজামা কি করবে? কেনো করবে?
  2. হিজামার স্ক্র‍্যাচ মার্ক স্কিনে স্কার মার্ক তখনই হবে যখন স্ক্র‍্যাচ হয়ে যাবে কাট (Cut/ incision) এবং তা গিয়ে পড়বে স্কিনের ২য় স্তর ডার্মিসে। ফলাফল এই দাগ চিরস্থায়ী।
এই দাগের চিকিৎসা লেজার থেরাপী, এছাড়া অন্যান্য ব্যয়বহুল চিকিৎসাও রয়েছে।

হিজামা একটি জনপ্রিয় সুন্নাহ ও বিজ্ঞানভিত্তিক চিকিৎসা পদ্ধতি।

হিজামা একটি ব্যাথামুক্ত ও ঔষধমুক্ত চিকিৎসা পদ্ধতি। হিজামা করতে কোন ব্যাথা লাগে না। এটাতে কোন কাটাছেঁড়া করা হয় না। হালকা স্ক্র্যাচ করা হয়। এতে একটু কড়া সুড়সুড়ি অনুভূত হয় মাত্র, ভয়ের কোনই কারণ নেই।
হিজামা থেরাপী নেয়ার বা দেয়ার সময় তাই সবার সতর্ক হওয়া উচিৎ। আসুন সুন্নাহকে অবহেলা না করে হিজামা করা বা করানোর আগে এ বিষয়ে স্টাডি করি। শুধু সুন্নাহ নয়, অভিজ্ঞ চিকিৎসক কে জিজ্ঞেস করুন হিজামা কিভাবে কাজ করে, কোন রোগে কিভাবে করতে হয়, ইত্যাদি নানা প্রশ্ন। বাংলাদেশে তো হিজামা এখন এমন ব্যবসা হয়েছে যে হিজামা কিভাবে কাজ করে জানে না, কিন্তু বই লিখছে, ট্রেনিং দিচ্ছে।
যেখানে হাদিসে এসেছে চিকিৎসা শাস্ত্রে অনভিজ্ঞ কেউ যদি চিকিৎসা দেয় তাকে জবাবদিহি করতে হবে।
হিজামার জন্য অনেকেই পেন ব্যাবহার করেন, বিশেষ করে নতুন থেরাপিস্টরা, পেন এক দিক থেকে ভাল খুব আনাড়ি থেরাপিস্ট হলে বেশি কেটে ফেলার সম্ভাবনা থাকে না। কিন্তু পেন এর ক্ষেত্রে কয়েকটা সমস্যাঃ
  1. ইনফেকশান হওয়ার ঝুঁকি বেশি
  2. পেন স্টেরিলাইজ করা হয় না, তাই লিভার ক্যানসারের জন্য দায়ী হেপাটাইটিস ও মরনঘাতী এইডস হওয়ার ঝুঁকি থেকে যায়।
  3. গভীর ক্ষত হয়।
  4. ব্যাথা বেশি লাগে।
  5. ব্লাড ফিল্ট্রেশান হওয়ার সম্ভাবনা কমে যায়।
যারা হিজামা প্রাকটিস করছেন আরো পড়াশুনা করুন, শিখুন। ইউটিউব আর কোয়াক দের থেকে নয়, হিজামা বিশেষজ্ঞ দের থেকে ট্রেনিং নিন, পরামর্শ করুন। নাহলে জবাবদিহির জন্য প্রস্তুত থাকুন। আর যারা মেডিকেল ব্যাকগ্রাউন্ডের তারাও শিখুন, পড়ুন তারপর চর্চা করুন। সার্টিফিকেট এর অপব্যবহার বন্ধ করুন প্লিজ। শেখায় লজ্জা নেই, ভুল চিকিৎসা দেয়ায় লজ্জা। আপনাদের কোন বিষয়ে জানার দরকার হলে আমাদের কাছে আসুন, আসতে না পারলে আমাদের গ্রুপে প্রশ্ন করুনঃ HIjama Planet: Cupping and Ruqyah Center
আমাদের কাছে স্কার মার্ক ছাড়াও পেশেন্ট আসে ব্লিস্টার নিয়ে। আর ট্রিটমেন্ট প্লান এ তো পয়েন্ট ভুলে ভরা। তাই যারা প্রাক্টিস করেন এনাটমি, ফিজিওলজি, প্যাথোলজি পড়ুন। সম্ভব না হলে, অন্তত অভিজ্ঞ কারো ট্রিটমেন্ট প্লান ফলো করুন। অনলাইনে বা অন্যান্য বইয়ে যেসব ট্রিটমেন্ট প্ল্যান পাওয়া যায় তার বেশিরভাগই কোন রোগীর উপর ভিত্তি করে তৈরি। আপনার রোগীর ট্রিটমেন্ট প্ল্যানও তাদের সাথে মিলবে না।
লিখেছেন Dr. Effat Saifullah
যারা হিজামা ও রুকইয়াহ করার জন্য সেন্টার বা ক্লিনিক খুঁজছেন তারা এখানে যোগাযোগ করুনঃ আমাদের বিভিন্ন হিজামা সেন্টার সমূহ
কলসেন্টারে ফোন করুনঃ +8801612877464
Facebook Comments
aaaqwe

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Shares
Translate »

WordPress database error: [Table 'hijamacom_hijamadb.wp_sidemenu' doesn't exist]
select * from wp_sidemenu ORDER BY menu_order ASC